কেস স্টাডির উদাহরণ (জেরিন আজগর)

কেস স্টাডির উদাহরণ জেরিন আজগর

 

জেরিন আজগর ১৯৫৩ সালের ২৪শে জানুয়ারী শুক্রবার পাকিস্থানে জন্মগ্রহণ করেন। তিনি যে সময়ে জন্মেছিলেন, সেই সময় এটা ধারণা করা খুব কঠিন ছিল যে, তিনি একদিন বাংলাদেশের একজন সেরা বিউটিশিয়ানে পরিণত হবেন। তিনি সাধারন পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। ১২ বছর বয়সে তিনি পাকিস্থান ত্যাগ করেন এবং বাংলাদেশের বিভিন্ন স্থানে ১০ বছর কাটান। তিনি পরিবারের একমাত্র কন্যা সন্তান হলেও, তিনি আনুষ্ঠানিক শিক্ষাগ্রহণ করেন। খুব ছোটবেলা থেকেই তিনি যা কিছুই করেছেন, তা সর্বোত্তমভাবে সম্পাদন করেছেন। যা তাঁকে এনে দিয়েছে সর্বোৎকৃষ্ট কার্যসম্পাদনের গুণ। তার লক্ষ্য ছিল বিউটি পার্লার ব্যবসাকে প্রতিষ্ঠা করা আর সেই লক্ষ্যে মাত্র ১৩ বছর বয়সে একজন সৌর্ন্দয্য শিল্পী হিসেবে কাজ শুরু করেছিলেন।

একজন বিনয়ী হিসেবে তিনি অস্বাভাবিক খরচকে অপছন্দ করতেন। তাঁর একটি দীর্ঘ-মেয়াদী পরিকল্পনা ও সময়জ্ঞান ছিল। তাঁর এ গুণের প্রমাণ পাওয়া যায় তিনি এক যায়গা থেকে প্রাপ্ত কিছু অনুদান নিজের দোকান করার জন্য বিনিয়োগ করেছিলেন। তিনি এমনই একজন ছিলেন যিনি সব সময়ই ভবিষ্যতের দিকে তাকাতেন এবং এজন্য কিছুটা উচ্চাভিলাষী ছিলেন।

উচ্চবিত্ত মানুষের সাথে সুসম্পর্ক থাকার সুযোগে তিনি বাংলাদেশে প্রথম বিউটিশিয়ান হিসাবে পার্লার প্রতিষ্ঠা করেন যা মূলতঃ উচ্চবিত্ত মানুষের জন্যই ছিল। প্রচন্ড পরিশ্রম এবং অধ্যাবসায় তাকে খুব দ্রুত পরিচিতি এনে দেয় এবং সাথে সাথে ব্যবসাটি মধ্যবিত্ত মানুষের নাগালের মধ্যে চলে আসে। তিনি প্রত্যেক ব্যবসায়ীর ব্যক্তিগত ও ব্যবসায়িক জীবনের সব ব্যাপারে জানার চেষ্টা করতেন। তিনি একজন পুরানো বিউটিশিয়ান ছিলেন কিন্তু নতুন যে কোন ভালো প্রযুক্তি গ্রহন করতেন।

তার ব্যবসায়িক যোগাযোগ সৃষ্টি ও তা রক্ষা করার সামর্থ ছিল। অনেক সময় তার ব্যবসায়ী ও উচ্চপদস্থ কর্মচারীদের সংগে যোগাযোগ তাঁর ব্যবসায়ের লক্ষ্য অর্জনে সহায়তা করত। তাঁর কর্মীরা কঠিন পরিশ্রম করতেন এবং তাঁর কাছে উন্নতির ব্যাপারটি ছিল প্রধান। শুরুতে তাঁর এবং তাঁর লোকদের জন্যে অনেক মাস যাবৎ কোন ছুটির দিন ছিল না। তাঁরা অফিস সময়ের পরেও কাজ করতেন।  তার আদৌ কোন শত্রু ছিল না, কেউ তাঁকে অপছন্দ করত না। অন্যেরা তাঁর উপর কোন সুযোগ নিতে চাইলেও তিনি সরে দাঁড়াতেন।

তিনি বিশ্বাস করতেন যে, শত্রু কে অবশ্যই জয় করতে হবে, আঘাত করে বা পরাজিত করে নয় বরং বন্ধুত্ব অর্জনের মাধ্যমে। আর এভাবেই তিনি জীবন, ব্যবসা এবং মানুষের কাছে গিয়েছেন। এই কেস স্টাডির উদাহরণ থেকে একটি প্রশ্নের উত্তর দিন।

————————————————————————————-

প্রশ্নঃ জেরিন আজগরের কি কি উদ্যেক্তাসুলভ গুনাবলী ও দক্ষতা ছিল?

Leave a Comment