ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায় | ফ্রিল্যান্সিং এ কোন কাজের চাহিদা বেশি

আমাদের আজকের বিষয় ফ্রিলান্সিং কি এবং ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায়?

ফ্রিলান্সিং: বর্তমান সময়ে জনসংখ্যার দ্রুত বিষ্ফরণের কারণে মানবজীবনে প্রতিনিয়ত নানাবিধ সমস্যা সৃষ্টি হচ্ছে। যার মধ্যে অন্যতম প্রধান সমস্যা হলো বেকারত্ব । বেকারত্ব দিন দিন ভয়াবহভাবে প্রতিটা রাষ্ট্র তথা সমাজ, পরিবারকে গ্রাস করছে।  বেকারত্ব সমস্যা থেকে পরিত্রানের সবচেয়ে ভাল উপায় হল ফ্রিলান্সিং

ফ্রিলান্সিং কী?

ফ্রিলান্সিং কথাটি মুলত ইংরেজি শব্দ। যার সঠিক বাংলা অর্থ মুক্তপেশা। Self-Employed বা মুক্ত পেশা কথা থেকেই বোঝা যায় এমন একটি পদ্ধতির কথা, যার মাধ্যমে নিজের স্বাধীনতা বজায় রেখে নিজের মতো কাজ করা।

ইন্টারনেট প্রযুক্তি ও অনলাইন বিভিন্ন রিসোর্স ব্যবহার করে ঘরে বসে নিজের অভিজ্ঞতা এবং পারদর্শিতার মাধ্যমে নিজস্ব স্বাধীনতা বজায় রেখে যে প্রক্রিয়ায় অর্থ উপার্জন করা হয় তাকে ফ্রিলান্সিং বলে।

অর্থাৎ যে কাজ নিজের পছন্দ অনুযায়ী এবং অভিজ্ঞতার দ্বারা সম্পন্ন করে ইন্টারনেট হতে ইনকাম করা যায় তাকেই ফ্রিলান্সিং বলে।

ফ্রিলান্সার এবং ফ্রিলান্সিং

ফ্রিলান্সার এবং ফ্রিলান্সিং একই রকম শব্দ মনে হলেও অর্থের মাঝে ভিন্নতা রয়েছে।  অনলাইনের মাধ্যমে কাজ করে কোনো ব্যক্তি টাকা ইনকাম করলে তাকে বলা হয় ফ্রিলান্সার। আর একজন ফ্রিলান্সার যে পদ্ধতিতে অনলাইনের মাধ্যমে অর্থ উপার্জন করেন তাকে বলা হয় ফ্রিলান্সিং।

নতুনদের জন্য ফ্রিল্যান্সিং

নতুন ফ্রিল্যান্সারদের জন্য লেখালেখি একটি সহজ বিষয় হতে পারে । যাদের টুকটাক লেখালেখির অভ্যাস আছে তারা এটিকে প্রফেশন বা চাকুরী হিসাবে গ্রহণ করতে পারে । এতে তার সৃজনশীলতার বিকাশ ঘটবে । সাথে সাথে সে মাস শেষে বেশ মোটা অংকের অর্থ উপার্জন করতে পারবে । লেখালেখি বিভিন্ন ধরনের হতে পারে তার মধ্যে বর্তমানে সবচেয়ে বেশি চাহিদা আছে এমন কিছু লেখার ধরন উল্লেখ করা হলোঃ

লেখক হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং (লেখালেখি সংক্রান্ত কাজ) 

১. প্রবন্ধ লেখক

২. ব্লগ লেখক

৩. ইবুক লেখক

৪. কথা সাহিত্যিক

৫. ওয়েব কন্টেন্ট রাইটার

৬. কপিরাইটার

৭. অনুবাদক লেখক

৮. সম্পাদক/ সম্পাদনা

৯. প্রুফরিডার

১০. প্রেস রিলিজ লেখক

১১. ছদ্দবেশী লেখক

১২. আইনী লেখক

১৩. জীবনবৃত্তান্ত এবং কভার লেটার রাইটার

১৪. পণ্যের বর্ণনা

১৫. প্রতিলিপি লেখক

১৬. প্রযুক্তিগত লেখক

১৭. অতিথি লেখক

১৮. একাডেমিক লেখা

গ্রাফিক ডিজাইনার হিসেবে ফ্রিল্যান্সিং

  •  লোগো ডিজাইনার
  •  ফটোশপ সম্পাদক
  •  ওয়েবসাইট  ডিজাইনার
  •  ফটো এডিটর
  •  ফটো রিটাচিং
  •  গ্রাফিক/পোস্টার ডিজাইনার
  •  আইকন ডিজাইন
  •  বইয়ের কভার ডিজাইনার
  •  টি-শার্ট ডিজাইনার
  •  ইনফোগ্রাফিক ডিজাইনার
  •  CAD ডিজাইনার
  •  ভেক্টর ডিজাইনার
  •  কার্টুন শিল্পী
  •  ব্যানার/বিজ্ঞাপন ডিজাইনার
  •  বিবাহের অ্যালবাম ডিজাইনার
  •  স্কেচ শিল্পী
  •  ডিজিটাল শিল্পী
  •  ভেক্টর ইলাস্ট্রেটর ডিজাইন
  •  প্রিন্ট ডিজাইনার
  •  তৈলচিত্র (পেইন্টার)
  •  ফ্লায়ার ডিজাইনার
  •  ব্রোশিওর ডিজাইনার

ওয়েব ডেভেলপমেন্ট

ওয়েবসাইট ডেভিলপমেন্ট বিষয়েও রয়েছে বিস্তর কাজ পাওয়ার সুযোগ। অনলাইন জগতে দিন দিন ওয়েব ডেভেলপমেন্ট চাহিদা  বেড়েই চলেছে। কাজ করতে পারবেন  বিভিন্ন ছোট ছোট সাব ক্যাটাগরি নিয়ে, যেমনঃ

  •  ফ্রন্ট-এন্ড ডিজাইনার
  •  ব্যাক-এন্ড ডেভেলপার
  •  UX / UI ডিজাইনার
  •  প্লাগইন ডেভেলপার
  •  ​​ওয়ার্ডপ্রেস বিশেষজ্ঞ
  •  ওয়েব ফন্ট ডিজাইনার
  •  বাগ ফিক্সিং
  •  সার্ভার প্রশাসক
  •  ওয়েবসাইট নির্মাতা
  • অ্যাপ UI ডিজাইনার
  •  অ্যাপ ডেভেলপার
  • গেম ডেভেলপার

 

অর্থ উপার্জন করুন পরামর্শদাতা হিসেবে

  •  আর্থিক উপদেষ্টা
  •  আইনি পরামর্শদাতা
  •  এসইও পরামর্শক
  •  স্বাস্থ্য উপদেষ্টা
  • প্যারেন্টিং উপদেষ্টা
  •  ফিটনেস উপদেষ্টা
  •  কর্মজীবন উপদেষ্টা

 

ভিডিও প্রযোজনার মাধ্যমে অর্থ উপার্জন

 

  •  ইন্ট্রো ভিডিও
  •  ব্যাখ্যাকারী ভিডিও
  • ভিডিও প্রশংসাপত্র
  •  স্টপ-মোশন ভিডিও
  •  ভিডিও অ্যানিমেটর
  •  সোশ্যাল মিডিয়া ভিডিও নির্মাতা
  •  YouTube ভিডিও সম্পাদক

অডিও রেকর্ড করে আয় করুন

  •  ভয়েস-ওভার শিল্পী
  •  অডিও সম্পাদক
  •  অডিও অনুবাদক
  •  সঙ্গীত রচনা
  •  পডকাস্ট বিজ্ঞাপন রেকর্ড করুন

ঘরে বসে ভার্চুয়াল এ্যাসিস্ট্যান্ট

ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বর্তমানে ভার্চুয়ালি অনেক ধরনের চাকরি করা সম্ভব । আপনি দেশে বিদেশের অনেক প্রতিষ্ঠানে পার্টটাইম বা ফুলটাইম চাকরি করতে পারেন ।এ ধরনের কাজের সহায়তাকারীকে ভার্চুয়াল  (Virtual Assistant) বলা হয়ে থাকে।  তবে ভার্চুয়াল সহকারী হিসেবে কাজ করতে হলে আপনাকে বিশেষ ধরনের পারদর্শিতা অর্জন করতে হবে ।

বিশেষ করে ইংরেজি বলার ও লেখার দক্ষতা থাকতে হবে । ফ্রিল্যান্সার হিসেবে বর্তমানে যে সকল কাজ অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এবং মার্কেটে বিশেষ চাহিদা আছে সেগুলো হলো:

  •  ভার্চুয়াল সহকারী
  •  ডেটা এন্ট্রি
  •  মার্কেটিং কৌশলবিদ
  •  সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজার
  •  লাইভ চ্যাট এজেন্ট

ফ্রিল্যান্সিং মার্কেটপ্লেস

বর্তমানে  ফ্রিল্যান্সিং এ কি কি কাজ করা যায় তার একটি সংক্ষিপ্ত তালিকা এখানে তুলে ধরা হলো তবে এর বাইরেও অনেক কাজ প্রতিদিনই ফ্রিল্যান্সিং এ জগতে যুক্ত হচ্ছে, ফ্রিল্যান্সিং জগতে সফল হওয়ার জন্য সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ হচ্ছে দক্ষতা অর্জন। আপনার যদি দক্ষতা থাকে তাহলে আপনি যেকোন বিষয়ে কাজ করে সফলতা পেতে পারেন।

যে ১০ টি ফ্রিল্যান্সিং কাজের চাহিদা বেশি

ফ্রিল্যান্সিংয়ের ক্ষেত্রে যে সকল কাজের চাহিদা বর্তমানে সবচেয়ে বেশি সেগুলো একটু কঠিন হলেও এসকল কাজ থেকে বেশ ভালো পরিমাণে ইনকাম করা যায় । এগুলো শেখার জন্য বিভিন্ন ধরনের প্রতিষ্ঠান আছে । শেখার জন্য একটু সময় বেশি হলেও এ ধরনের কাজের চাহিদা খুব বেশি এবং পেমেন্ট ও অনেক বেশী হয়ে থাকে।

  1. টি-শার্ট ডিজাইন
  2. লোগো ডিজাইন
  3. ফটো এডিটিং
  4. ওয়েবসাইট ডেভেলপমেন্ট
  5. ভিডিও এডিটিং
  6. এসইও
  7. ডাটা এন্ট্রি
  8. কপি পেস্ট টাইপিং
  9. ডিজিটাল মার্কেটিং
  10. কনটেন্ট রাইটার

কন্টেন্ট রাইটিং এর উপরে জনপ্রিয় একটি কোর্স যেটা দিয়ে আপনি আপনার ফ্রিল্যান্সিং ক্যারিয়ার শুরু করতে পারেন-