২০২০ এর জন্য সেরা ব্যবসায়ের ধারণা খুঁজছেন? ডিজিটাল অর্থনীতি এবং “ব্যক্তির অর্থনীতি” এর উত্থানের সাথে সাথে আরও বেশি লোক  ব্যবসা শুরু করতে চায় এবং তাদের নিজস্ব ব্যবসায়ের বস হতে চায়। ব্যবসা করার জন্য যে জিনিসটি সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন তা হচ্ছে সঠিক ব্যবসায়িক ধারণা।

১. সেরা অনলাইন বিজনেস আইডিয়া: একটি লাভজনক ব্লগ শুরু করুন

 

আপনি যখন কোনও অনলাইন ব্যবসা শুরু করেন, আপনি সম্ভবত তিনটি জিনিসের বিক্রি করেন:

  • আপনার সময় (প্রশিক্ষণ বা পরামর্শ)।
  • আপনার নিজস্ব পণ্য (ইকমার্স বা সাইট)।
  • অন্য কারোর পণ্য (অনুমোদিত বিপণন বা বিজ্ঞাপন)।

 

একটি বিজনেস আইডিয়ার  সাহায্যে আপনি একটি ওয়েবসাইট থেকে এই সমস্ত পণ্য বিক্রি করে সর্বাধিক অর্থ উপার্জন করতে পারেন।

 

২. অনলাইন কোর্স এবং কোচিং

 

অনলাইন কোর্স প্ল্যাটফর্মের মাধ্যমে আপনার জ্ঞান বা দক্ষতা বিক্রি করে নেওয়া সহজ হয়ে গেছে। আপনি যদি কোনও বিষয় বিশেষজ্ঞ বা কোনও বিষয়ে উত্সাহী হন তবে আপনি এটিকে যথেষ্ট আয়ে রূপান্তর করতে পারেন।

শিক্ষার্থীদের অনলাইন কোচিং ক্লাস অফার করুন, আপনার অনলাইন কোচিং বাণিজ্য গড়ে তুলতে সহায়তা করার জন্য একটি গ্রুপ তৈরি করুন। আপনি একটি ফেসবুক পৃষ্ঠা বা একটি পডকাস্ট সেট আপ করতে পারেন যেখানে আপনি অনলাইন কোচিং ক্লাসগুলির আপলোড করতে পারেন।

বিভিন্ন ধরনের অনলাইন প্ল্যাটফর্ম রয়েছে। আপনি এই প্ল্যাটফর্মগুলিতে নিবন্ধন করতে এবং এখনই কোচিং শুরু করতে পারেন।

 

৩. গ্রাফিক ডিজাইন

 

অনেকে ব্র্যান্ডিংয়ের উদ্দেশ্যে সর্বদা গ্রাফিক ডিজাইনারের সন্ধানে থাকে। ব্যানার, পোস্টার এবং লোগো ডিজাইন করার এখানে সুযোগ অপরিসীম।

আপনি আপনার গিগটি শুরু করার জন্য ছোট ডিজাইনকারী প্রতিষ্ঠান বা ব্যক্তির কাছে আপনার নকশা দক্ষতা তৈরি করতে পারেন। গ্রাফিক ডিজাইনাররা প্রাসঙ্গিক কাজ সন্ধান করতে বিভিন্ন ফ্রিল্যান্স ওয়েবসাইটেও যোগ দিতে পারেন।

আপনার যদি এই ক্ষেত্রটি সম্পর্কে পূর্বে জ্ঞান থাকে তবে ক্লায়েন্ট প্রাপ্তি সহায়ক হবে। তবে, গ্রাফিক ডিজাইনের প্রাথমিক বিষয়গুলি শিখতে বেশ সহজ, বিপুল সংখ্যক অনলাইন কোর্স রয়েছে।

গ্রাফিক ডিজাইন শিখতে আপনি অ্যাডোব ইনডিজাইন বা ফটোশপের মতো গ্রাফিক ডিজাইনের সফটওয়্যার সংগ্রহ করতে পারেন।

 

৪. Affiliate Marketing

 

অনলাইনে প্যাসিভ অর্থ কীভাবে উপার্জন করতে হয় সে সম্পর্কে কেউ জিজ্ঞাসা করলে অনেক লোক স্বয়ংক্রিয়ভাবে affiliate marketing এর কথা অনেক প্রতিষ্ঠান তাদের পণ্য প্রচার এবং বিক্রির জন্য কমিশন দেয়।

একটি ব্লগ ইনকাম রিপোর্ট স্টাডি অনুসারে, ব্লগাররা প্রতিমাসে গড়ে ২৫০০০ টাকা এর মত আয় করে।

৫. ইন্টেরিয়ার ডিজাইনার

মানুষ এখন আগের চেয়ে আরও বেশি রুচিশীল আর তাদের ঘরের বিষয়ে সচেতন হয়ে উঠেছে। ঘরের বিন্যাস এবং অভ্যন্তর ডিজাইনারের প্রয়োজনে তাঁরা  ডিজাইনার খোঁজে। তাঁরা তাদের দেয়ালগুলির জন্য উপযুক্ত রঙ ও ফার্নিচার তাদর মাধ্যমে ঠিক করে নেয়।

আপনি Pinterest থেকে অনুপ্রেরণা নিতে পারেন, যা থেকে অনুপ্রেরণা গ্রহণের জন্য প্রচুর পরিমাণে interior নকশা করা আছে। আপনি আনুষ্ঠানিকভাবে শুরু করার আগে আত্মবিশ্বাস অর্জনের জন্য আপনার পরিচিত ব্যক্তির কাছে আপনার দক্ষতা ও প্রশিক্ষণ নিয়ে শুরু করতে পারেন।

৬. উবার

 

উবার গাড়ি চালিয়ে আপনি বেশ ভাল অর্থ উপার্জন করতে পারেন। গাড়ি চালানো ছাড়া আর কোন দক্ষতার প্রয়োজন নেই। আপনার সিদ্ধান্তের সম্ভাব্যতা জানতে আপনি উবারের ওয়েবসাইটের প্রয়োজনীয়তা তথ্য যাচাই করতে পারেন।

তবে, চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে, প্রতি মাসে প্রকৃত লাভ সনাক্তকরণের জন্য গ্যাস, জ্বালানি, টোল চার্জ এবং রক্ষণাবেক্ষণের ব্যয় নির্ধারণ করা ও বিবেচনা করা প্রয়োজন।

৭. ফ্রিল্যান্স আর্টিকেল রাইটিং

বিভিন্ন ওয়েব সাইটে কন্টেন্ট লেখকদের প্রচুর চাহিদা রয়েছে। আপনার যদি আকর্ষণীয় গল্প এবং নিবন্ধ লেখার দক্ষতা থাকে, তবে আপনি আপনার দক্ষতাকে একটি লাভজনক ফ্রিল্যান্স রাইটিং ব্যবসায়ে পরিণত করতে পারেন।

ক্লায়েন্টদের ত্রুটি-মুক্ত কাজের সহায়তা করতে আপনি সম্পাদনা এবং প্রুফরিডিংয়ের কাজও নিতে পারেন। ফ্রিল্যান্স সামগ্রী লিখন আপনাকে যে কোনও অবস্থান থেকে উপার্জনের সুযোগ আছে।

  • ফ্লেক্সজবস
  • ফাইবার
  • আপ ওয়ার্ক
  • প্রো ব্লগার

আপনি আপনার পোর্টফোলিও তৈরি করেন, আপনি এমনকি নিজের ওয়েবসাইট চালু করতে পারেন যেখানে  আপনার দক্ষতাগুলো উল্লেখ করতে পারেন। আপনি লিংকডইনের মতো সামাজিক মিডিয়া প্ল্যাটফর্মে সম্ভাব্য ক্লায়েন্টের সাথে সংযুক্ত হতে পারেন।

৮. একটি ইউটিউব চ্যানেল তৈরি করুন-

অনেকে আবেগ, দক্ষতা, ভ্রমণ, খাবার, পর্যালোচনা এবং স্ট্যান্ড-আপ কমেডি ভিডিও তৈরি করে হাজার হাজার ডলার উপার্জন করছেন , আকর্ষণীয় এবং অনন্য ভিডিও তৈরির জন্য আপনার সম্পর্কে আগ্রহ ও পর্যাপ্ত জ্ঞান রয়েছে এমন একটি বিষয় চয়ন করুন। আপনি যত বেশি বিনোদনমূলক সামগ্রী পোস্ট করবেন, তত বেশি দর্শন এবং সাবস্ক্রাইব পাবেন।

বেশ কয়েকটি সফল ইউটিউবার ভিডিও পোস্ট করে লক্ষ লক্ষ উপার্জন করে। তবে, ১০০০ ভিউ এর জন্য গড়ে ইউটিউব প্রায় ১ ডলার থেকে ৩ ডলার প্রদান করে।

আপনার ইউটিউব চ্যানেলটি শুরু করার আগে, ইউটিউব নির্দেশিকা এবং কীভাবে ব্যবহার করবেন সে সম্পর্কে শিখুন। এছাড়াও, আরও বেশি উপার্জনের সম্ভাবনার জন্য ভাল মানের ভিডিও তৈরি করতে একটি ভাল ক্যামেরা এবং মাইক্রোফোনে বিনিয়োগ করুন।

 

৯. অনলাইন হোম মেইড প্রডাক্ট বিক্রি

১০. অনলাইনে পাঠদান কার্যক্রম

64 / 100 SEO Score

Write A Comment