অল্প টাকায় বিজনেস আইডিয়া ২০২১

অল্প টাকায় ইউনিক কিছু বিজনেস আইডিয়া

চাকরি করব না চাকরি দেব ! এখনকার তরুণরা আর চাকরি করতে চাচ্ছে না তারা চাচ্ছে ব্যবসা করতে । আসুন জেনে নিই অল্প টাকায় বিজনেস আইডিয়া যা খুব সহজে শুরু করা যায়।

ব্যবসায়িক মনোভাবের সূত্রপাত

বর্তমান সময়ে গভমেন্ট জব বা প্রাইভেট জব দুটোই কিন্তু খুব কঠিন হয়ে পড়েছে । খুবই প্রতিযোগিতাপূর্ণ হয়ে পড়েছে । আরো হাজার হাজার প্রতিযোগী প্রতিবছরই এই প্রতিযোগিতায় যুক্ত হচ্ছেন ।

অনেক ক্ষেত্রে তারা আপনার থেকে অনেক বেশি এগিয়ে আছে । যে কারণে প্রতিবছর তরুণদের মধ্যে হতাশা বেড়ে চলেছে । এই হতাশা নিয়ে তো আর বসে থাকলে চলবে না । এর থেকে ভালো আপনি নিজের জন্য যদি ছোটখাটো আকারে কোন কিছু শুরু করতে পারেন ।

কারণ এই ছোট ব্যবসা-ই পৃথিবীতে অসংখ্য মানুষের ভাগ্য পরিবর্তন করেছে এবং আজকে আপনারা যে বড় বড় ব্যবসায়ী দেখছেন তারা প্রত্যেকেই ছোট আকারের ব্যবসা শুরু করেছিলেন। আজকে আপনি এখান থেকে দশটি বিজনেস আইডিয়া পাবেন আপনি ছোট করে হলেও শুরু করতে পারবেন।

সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট

সোশ্যাল মিডিয়া সার্ভিস

বর্তমান যুগ হচ্ছে মিডিয়ার যুগ এবং যারা মিডিয়াকে ভালবাসেন বিশেষ করে সারাদিন ফেসবুক, ইউটিউব, টুইটার, হোয়াটসঅ্যাপ এগুলোর মধ্যে পড়ে থাকেন, তারা শুরু করতে পারেন সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট এর ব্যবসা । সোশ্যাল মিডিয়া ম্যানেজমেন্ট হচ্ছে অন্যের ওয়েবসাইট, ফেসবুক পেজ এগুলোকে ম্যানেজ করা ।

কাদের সাইট ম্যানেজ করবেন ? যারা ব্যবসায়ী তারা অনেক ব্যস্ত থাকেন । তাদের আসলে এগুলো করার সময় নেই । তাই তারা এগুলো অন্যকে দিয়ে করিয়ে থাকেন । তাছাড়া বিভিন্ন সেলিব্রেটি গায়ক, নায়ক, প্রতিষ্ঠা, ব্যক্তিত্ব তারাও তাদের নিজেদের সাইট অন্যকে দিয়ে মেনটেন করেন ।

কিভাবে কাজ পাবেন ? আপনাকে অনলাইনের মাধ্যমে তাদের সাথে যোগাযোগ করতে হবে এবং আপনি যে কাজটি পারেন তাও স্যাম্পল তাদেরকে পাঠাতে হবে।

বলপেন ব্যবসায় সফলতা

বলপেন বিজনেস আইডিয়া

বলপেন তৈরি : এটি খুব অল্প টাকার বিজনেস আইডিয়া যা সহজে শুরু করা যায় । আপনি ফেসবুক ইউটিউবে সার্চ দিলে বলপেন তৈরির উপাদান ও যন্ত্র সম্পর্কে ধারণা পাবেন । কয়েক হাজার টাকা ইনভেস্ট করে এটি তৈরি করা যায় ।

লোকাল মার্কেটে যদি আপনি মার্কেটিং করতে পারেন, প্রতিটি কলমে আপনি 1 থেকে 2 টাকা লাভ করতে পারবেন ফলে ১০০০ থেকে ২০০০ টাকা প্রতিদিন ইনকাম করা যাবে । ইউটিউবে এখনই বলপেন বিজনেস দিয়ে সার্চ দিয়ে দেখুন এই ব্যবসার ধরন ও চাহিদা সম্পর্কে।

 ফাস্টফুড ব্যবসা

ফাস্টফুড তৈরি : বিভিন্ন ধরনের ফাস্ট ফুড আছে, যেটা আপনি সামান্য প্রশিক্ষণ নিলে তৈরি করতে পারবেন । সকালে বিকালে সন্ধ্যায় সবসময়ই ফাস্টফুডের চাহিদা আছে । মানুষ চলতে-ফিরতে নানা ধরনের খাবার খেয়ে থাকে । আর আপনার খাবার যদি সুস্বাদু হয় তাহলে অনেক দূর থেকেও আপনার কাছে আপনার খাবার খেতে কাস্টমার আসবে । তাই আপনার যদি খাবার তৈরিতে আগ্রহ থাকে, তাহলে আপনি  অল্প টাকায় এই বিজনেস ব্যবসা শুরু করতে পারেন ।

কিভাবে শুরু করবেন ?

ব্যবসা শুরু করার জন্য প্রথমে আপনাকে কোন জনবহুল জায়গা বেছে নিতে হবে । এরপরে আপনার খাবারগুলোকে সুন্দর করে প্রদর্শন করতে হবে । মনে রাখবেন এগুলো হচ্ছে লোভনীয় ফুড । তাই আপনাকে কাস্টমারের চোখে আকর্ষণ লাগাতে হবে ।  খাবারগুলোয় তাহলে আপনি খুব দ্রুত অনেক কাস্টমার পাবেন এবং খাবারের কোয়ালিটি অবশ্যই থাকতে হবে।

ইউটিউবিং

ইউটিউব চ্যানেল : আপনার যদি ব্যতিক্রম কোন প্রতিভা থাকে, যেটা অন্যরা দেখলে খুব প্রশংসা করে বা মুহূর্তেই আপনি আপনার দক্ষতা দেখিয়ে অনেক দর্শক হাজির করতে পারেন, সে ক্ষেত্রে আপনি একটি ইউটিউব চ্যানেল করতে পারেন । যে চ্যানেলর মাধ্যমে আপনি অন্যকে আপনার দক্ষতা বা আপনার যদি কোন বিষয়ে অনেক ভালো অভিজ্ঞতা থাকে তা আপনি টিউটোরিয়াল আকারে অন্যকে শেখাতে পারেন । বর্তমানে বাংলাদেশে কয়েকশো চ্যানেল আছে যারা প্রতি মাসে পাঁচ লাখের ওপরে ইনকাম করে । আর 1 লাখের উপরে ইনকাম করে এমন ইউটিউব চ্যানেলের সংখ্যা হাজারেরও বেশি ।

ফেসবুক মার্কেটিং

ফেসবুকিং

ফেসবুক পেজ :  এটাকে বিজনেস পেজ বলা হয় । যদি সুন্দরভাবে সাজাতে পারেন এবং লোকাল মার্কেটসহ সারা বাংলাদেশের জন্য পণ্য প্রস্তুত করতে পারেন, যেটা আপনার এলাকায় সবচেয়ে আকর্ষণীয় । সারা বাংলাদেশ থেকে যে ধরনের পণ্যের চাহিদা আছে সেই পণ্য গুলো আপনি সংগ্রহ করে বা বাজার যাচাই করে আপনার পেজে শুধুমাত্র ছবি আপলোড করবেন এবং অর্ডার হওয়ার পরে আপনি স্থানীয় কুরিয়ারের মাধ্যমে এই পণ্যগুলো আপনার দর্শকের হাতে পৌঁছে দিবেন । এতে আপনার খরচ নাই বললেই চলে আপনি আগে অর্ডার পাওয়ার পরে তারপরে ফোন সংগ্রহ করবেন । আর আপনার এলাকার ফোন  সম্পর্কে নিশ্চয়ই আপনি সবচেয়ে ভাল ধারণা রাখেন।

ই-শপ/ ই-কমার্স

ই-কমার্স

অনলাইন শপ তৈরি : আপনি দারাজ, আজকের ডিল ধরনের সাইটে আপনার নিজস্ব অনলাইন শপ অপেন করতে পারেন । যেখানে আপনি আপনার পণ্যের ছবি প্রদর্শন করাবেন । কাস্টমার যখন অর্ডার দিবে সেই অর্ডার আজকের ডিল/ দারাজ আপনাকে পাঠিয়ে দিবে । আপনি সে অনুযায়ী পণ্য সরবরাহ করবেন এবং পেমেন্ট পাবেন । এক্ষেত্রে আপনি আপনার স্থানীয় বাজারে যে সকল পণ্য সহজে পাওয়া যায় কিন্তু চাহিদা অনেক বেশি এ ধরনের পণ্য এসব অনলাইন শপে রাখতে পারেন এবং সহজে বিক্রি করতে পারবেন।

উপার্জন যখন বাইক চালনায়

বাইক রাইডিং

আপনি যদি বাইক চালাতে পারেন, তাহলে উবার বা পাঠাও এ ধরনের অ্যাপ ব্যবহার করে পরিবহন করতে পারেন এবং যারা এই ধরনের কাজের সাথে জড়িত তারা প্রতিদিন ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা সহজেই ইনকাম করতে পারেন । খরচ বলতে একটি মোটরসাইকেল আর সারাদিনের পেট্রোল খরচ । সবকিছু বাদ দিয়ে প্রতিদিন আপনার প্রতিদিন ৮০০ থেকে ১০০০ টাকা সহজেই ইনকাম করতে পারবেন।

বিজনেস প্রশিক্ষণঃ আপনি যদি একজন ভালো প্রশিক্ষক হন এবং যদি বিজনেস সম্পর্কে আপনার পর্যাপ্ত ও গভীর জ্ঞান থাকে, তাহলে আপনি অনলাইন কিংবা সরাসরি বিভিন্ন ধরনের ব্যবসা সংক্রান্ত সম্পর্কিত প্রশিক্ষণ প্রদান করতে পারেন। এক্ষেত্রে প্রশিক্ষণের জন্য আপনাকে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের সাথে সরাসরি যোগাযোগ করতে হবে অথবা আপনি আপনার ফেসবুক প্রোফাইলে অনলাইন ইভেন্ট তৈরি করে সেখানে প্রশিক্ষণের সার্কুলার দিতে পারেন। বাংলাদেশে এখন এ বিষয়ে বেশ ভালো পরিমাণ ইনকামের সুযোগ আছে।

এছাড়াও আপনার আশেপাশে হাজার রকম বিজনেস আইডিয়া আছে, যা আপনি খুব অল্প টাকায় শুরু করতে পারেন । মনে রাখবেন অল্প টাকায় একসময় গল্পের সৃষ্টি করে হয়ে যায় এক নতুন ইতিহাস । আজকে আমরা যে সকল ব্যবসায়ীদেরকে কোটিপতি বিলিয়নিয়ার হিসেবে দেখছি তারাও কিন্তু শুরু করেছিলেন সৎ কোন একটা আইডিয়া আর সামান্য কিছু অর্থ দিয়ে ।

সুতরাং এবার আপনার পালা। অল্প টাকায় বিজনেস আইডিয়া অল্প টাকায় বিজনেস আইডিয়া অল্প টাকায় বিজনেস আইডিয়া

8 thoughts on “অল্প টাকায় বিজনেস আইডিয়া ২০২১”

Leave a Comment